খাদিজা বিনতে খুওয়াইলিদ রা. এর সাথে বিবাহ

খাদিজা বিনতে খুওয়াইলিদ রা. – তরুণ বয়সে রাসূল সা. এর নির্দিষ্ট কোনো কাজ ছিল না। তিনি যখন যেই কাজ সম্ভব হতো সেই কাজই করতেন।

এক বর্ণনা থেকে জানা যায়, সে সময় তিনি বনু সাদ গোত্রের বকরী চড়াতেন। তাছাড়া মজুরির বিনিময়ে মক্কার কয়েকজন ব্যক্তিরও বকরী চড়াতেন।

২৫ বছর বয়সে তিনি মক্কার অন্যতম ব্যবসায়ী খাদিজা বিনতে খুওয়াইলিদের ব্যবসায়িক পণ্য নিয়ে সিরিয়ায় গমন করেন।

অধিক মুনাফা

রাসূল সা. ব্যবসায়িক সফর থেকে ফিরে আসার পর হযরত খাদিজা দেখলেন যে, পূর্বের তুলনায় এবার তার ব্যবসায় লাভ অনেক বেশি হয়েছে।

এ ছাড়া তিনি তার বাঁদী মাইসারার নিকট রাসূলের উন্নত চরিত্র, সততা ও ন্যায়পরায়ণতার অনেক প্রশংসা শুনলেন।

এটা শুনে তিনি রাসূলের প্রতি অনুরক্ত হয়ে পড়লেন।

বৈবাহিক প্রস্তাব

সর্বপ্রথম হযরত খাদিজা রা. তার মনের কথা নিজের বান্ধবী নাফিসা বিনতে মুনাব্বিহের নিকট ব্যক্ত করলেন।

নাফিসা তখন মুহাম্মাদ সা. এর নিকট গিয়ে কথা বললেন।

রাসূল সা. সম্মত হয়ে তার চাচাদের সাথে পরামর্শ করলেন। তার চাচারা তখন খাদিজা রা. এর চাচার সাথে আলোচনা করে প্রস্তাব পেশ করলেন।

বিবাহ

নিয়ম অনুযায়ী যথারীতি বিবাহ হয়ে গেল। নবীজির সিরিয়া সফর থেকে ফেরার দুইমাস পর এই বিয়ে সংগঠিত হয়।

বিয়েতে আল্লাহর রাসূলের মোহরানা ছিল ২০ টি উট। খাদিজা রা. এর বয়স ছিল তখন ৪০ বছর। তৎকালীন মক্কায় তিনি ছিলেন সর্বশ্রেষ্ঠ নারী।

খাদিজার জীবদ্দশায় রাসূল সা. আর কোনো বিয়ে করেন নি।

খাদিজা রা. এর ঘরে সন্তান

হযরত খাদিজা বিনতে খুওয়াইলিদ রা. এর ঘরে ২ ছেলে ও ৪ মেয়ে জন্মগ্রহণ করেন। ছেলে দুইজন হলো, কাসেম ও আব্দুল্লাহ।

আর মেয়ে চারজন হলো, জয়নব, রোকাইয়া, উম্মে কুলসুম ও ফাতেমা রা.।

বড় ছেলে কাসেম শৈশবে ইন্তিকাল করেন। তার নামের দিকে নিসবত করে রাসূল সা. কে আবুল কাসেম নামে ডাকা হতো।

আব্দুল্লাহ শৈশবে ইন্তিকাল করেন। তিনি তইয়্যব তাহের নামেও পরিচিত ছিলেন।

রাসূল সা. এর চার কন্যা ইসলামের যামানা পেয়েছেন।

তারা সকলেই ইসলাম গ্রহণ করার সৌভাগ্য অর্জন করেছেন। পাশাপাশি হিজরত করারও সৌভাগ্যলাভ করেছেন।

হযরত ফাতেমা রা. ব্যতিত সকলেই রাসূলের জীবিত থাকা অবস্থায় ইন্তিকাল করেন।

আর ফাতেমা রা. রাসূলের ইন্তিকালের ৬ মাস পর ইন্তিকাল করেন।

তথ্যসুত্র

আর রাহিকুল মাখতুম। পৃষ্ঠা ৬৮

আরো পড়ুন

বিশ্ববিদ্যালয়ে রাজনীতির কালো থাবা

লোডশেডিং কেন হয়

খলিফা আবু বকরের মৃত্যু

বিখ্যাত তুর্কি আলেম মাহমূদ আফেন্দী

আসওয়াদ আনাসীর ভংঙ্কর ফেতনা

খাদিজা বিনতে খুওয়াইলিদ

বিশেষ দ্রষ্টব্য: আমাদের লেখাগুলো সূচিপত্র অনুযায়ী দেখুন www.subject.arhasan.com এই ওয়েবসাইটে। আমরা কোন প্রকাশনীর বই রেফারেন্স হিসেবে ব্যবহার করি তা জানতে ভিজিট করুন www.arhasan.com/book এই ওয়েবসাইটে। আমাদেরকে গুগল নিউজে ফলো করতে পারেন এই লিংক থেকে

হযরত খাদিজা রা. এর সাথে নবীীজর কত বছর বয়সে বিয়ে হয়?

২৫ বছর বয়সে। তখন খাদিজা রা. এর বয়স ছিল ৪০ বছর

হযরত খাদিজা রা. এর ঘরে কতজন সন্তান ছিল?

৬ জন। দুইজন ছেলে ও চারজন মেয়ে।

আমি একজন ইসলামিক আলোচক, লেখক। ছোটবেলায় পড়ালেখা করেছি কওমী মাদ্রাসায়। পরবর্তীতে সাইন্স বিভাগ থেকে এসএসসি পরীক্ষা দিয়ে কৃতিত্বের সাথে পাশ করি। বর্তমানে আমি ডিপ্লোমা ইন মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এ অধ্যায়নরত। অবসরে আমি বই পড়তে পছন্দ করি। নতুন কিছু শিখতে, নতুন কিছু জানতে ভালোবাসি। আমার ইচ্ছা, ভালো মানুষ হয়ে সমাজকে সৎ কাজের আদেশ ও অসৎ কাজে বিরত রাখার চেষ্টা করা।

https://www.arhasan.com