আসসালামু আলাইকুম

আব্দুর রহমান আল হাসান

মুসলিম, তালিবুল ইলম

যে ব্যক্তি নিজের আমলের উদ্দেশ্যে ইলম অর্জন করে, ইলম তার হৃদয়কে কোমল করে দেয়। আর যে ব্যক্তি মুদাররিস বা টাইটেল ব্যবহারের জন্য কিংবা দাম্ভিকতা প্রদর্শন ও অন্যকে হেয় করার জন্য ইলম অর্জন করে, সে নিজেই নিজেকে ধোঁকা দেয়।  তার এই অহমিকা তাকে ধ্বংস করে দেয়

Abdur Rahman Al Hasan

আব্দুর রহমান আল হাসান

মুসলিম, তালিবুল ইলম

যে ব্যক্তি নিজের আমলের উদ্দেশ্যে ইলম অর্জন করে, ইলম তার হৃদয়কে কোমল করে দেয়। আর যে ব্যক্তি মুদাররিস বা টাইটেল ব্যবহারের জন্য কিংবা দাম্ভিকতা প্রদর্শন ও অন্যকে হেয় করার জন্য ইলম অর্জন করে, সে নিজেই নিজেকে ধোঁকা দেয়।  তার এই অহমিকা তাকে ধ্বংস করে দেয়।

নাহরাওয়ানের যুদ্ধ

নাহরাওয়ানের যুদ্ধ – আমিরুল মুমিনীন হযরত আলী ইবনে আবি তালেব রা. খারেজিদের কিছু শর্তে কুফায় থাকতে দিয়েছিলেন। যেগুলো হলো, ১. অন্যায়ভাবে কারো রক্ত ঝরাবে না। ২. সাধারণ জনগণকে ভীতসন্ত্রস্ত করবে না। ৩. কোনো মুসাফিরের পথ আটকাবে না। পড়ুন: খারেজিদের কুফায় ফিরে আসা আর যদি খারেজিরা এসব শর্ত মান্য না করে,

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

আবু বকরের প্রতিরোধ এবং কাফেরদের হামলা

আবু বকরের রাসূলের পক্ষে প্রতিরোধ – রাসূল সা. যখন ইসলামের দাওয়াত নিয়ে বেরিয়ে পড়লেন, মানুষকে তিনি ইসলামের পথে আহবান করতে লাগলেন তখনই কাফেররা রাসূলের বিরুদ্ধে বিরুদ্ধাচারণ শুরু করলো। তারা রাসূলকে বিভিন্নভাবে কষ্ট দিত। কখনো বা তাকে গালি-গালাজ করতো। কখনো বা তাকে প্রহার করতো। এত এত নির্যাতনের মধ্যেও রাসূল কখনো মানুষকে

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

ওমর রাঃ মৃত্যু

ওমর রাঃ মৃত্যু – ২৩ হিজরীর শেষের দিকের কথা। হযরত ওমর রাঃ সিদ্ধান্ত নিলেন, তিনি পুরো মুসলিম ভূখন্ডে সফর করবেন। আর প্রতিটি প্রদেশে তিনি দুইমাস করে অবস্থান করবেন। সেই বছর তিনি হজ্জ্ব পালনের জন্য মদীনা থেকে মক্কায় গমন করেন। ফেরার সময় তিনি আবতাহ উপত্যকায় অবস্থান করে আল্লাহর নিকট দোয়া করলেন,

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

আমি মৃত্যু দেখেছি

আমি মৃত্যু দেখেছি – মৃত্যু! হিমশীতল একটি শব্দ। কখনো কখনো ভয়ে কুকড়ে উঠি। বিমর্ষিত হয়ে উঠি। আতঙ্কে চুপসে যাই। অতীত ভেবে আশাহত হই। এমন কোনো ব্যক্তি আছে কি, যার মৃত্যু হবে না? যার মৃত্যু নেই? যে চিরঞ্জীব? যে মৃত্যুঞ্জয়ী? উত্তর আসবে, নেই। এমন কেউ নেই। ইতিহাসগ্রন্থে রয়েছে, পূর্বেরকার যামানায় অনেক

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

মাহমূদ আফেন্দী কে ছিলেন

মাহমূদ আফেন্দী – ১৯২৩ সালে উসমানী খেলাফতের বিলুপ্তির পর তুরষ্কের শাসন ক্ষমতা কেড়ে নেয় ইহুদী জায়োনিজমের আদর্শ লালনকারী কামাল। (আতাতুর্ক শব্দটি ব্যবহার করছি না। কারণ, তার মতো ফ্যাসিবাদী শাসককে আমি তুর্কি জাতির পিতা হিসেবে মেনে নিতে পারি না।) কামালের ইসলাম বিদ্ধেষ কামাল রাষ্ট্রক্ষমতায় আসার পর পরই ইসলামকে আরবদের প্রাচীন রীতি

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

আবু তালিবের মৃত্যুর ঘটনা

আবু তালিবের মৃত্যুর ঘটনা – নবুয়তের ১০ম হিজরীর রজব মাসের ঘটনা। নবীজির চাচা আবু তালিবের অসুস্থতা বাড়তে লাগলো। আবু তালিবের মৃত্যুর পূর্বে নবীজি সা. তার নিকট উপস্থিত হলেন। সেখানে আবু জাহলও ছিল। রাসূল সা. তার চাচাকে বললেন, হে চাচাজান! আমি শুধুমাত্র বলুন “লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ” (আল্লাহ ব্যতিত কোনো ইলাহ নেই)।

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

সর্বশেষ প্রকাশিত

আরুজ বারবারোসা

আরুজ বারবারোসা – বিখ্যাত উসমানীয় সালতানাতের গুরুত্বপূর্ণ একজন শাসক হলেন ইয়াভুজ সুলতান এবং খলিফা প্রথম সেলিম। তিনি ১৫১২ থেকে ১৫২০ সাল পর্যন্ত সুলতান ছিলেন। প্রথম সালিমের শাসনকালের সাথেই জড়িয়ে আছে বিখ্যাত অ্যাডমিরাল আরুজের কৃতিত্ব। ষোড়শ শতাব্দীর এই সময়টাতে আফ্রিকা ও ভূমধ্য সাগরের অবস্থা ছিল খুবই করুণ অবস্থার শিকার হয়। উত্তর আফ্রিকার তিউনিস, মরক্কো, আলজেরিয়ায় ছিল রাজনৈতিক সমস্যা। বিভিন্ন গৃহযুদ্ধ চলমান ছিল এই অঞ্চলে। তাদের মারামারির সুযোগ নিয়ে পর্তুগিজরা এই অঞ্চলে

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

যা ঘটেছে যা ঘটছে যা ঘটবে

যা ঘটেছে যা ঘটছে যা ঘটবে – প্রথমেই কিছু প্রশ্ন দিয়ে শুরু করি। পরাশক্তিগুলো কেন কখনো নিজের দেশে যুদ্ধ বাধায় না? কেন তারা নিজেদের দেশ থেকে বহু দূরে যুদ্ধের ফ্রন্ট খুলে? কেন তারা পক্সিওয়ার করে? পৃথিবীতে কত প্রকারের জাতি আছে? এই প্রশ্নের উত্তরটা যদিও জটিল, তারপরও একটা হিসাব কষা যায়। ১. কিছু জাতি হলো পা চাটা স্বভাবের। তারা নিজেদের সুবিধার জন্য দুই পরাশক্তির মধ্যে যেকোনো একটাতে যোগদান করে। কিন্তু স্বার্থ

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

মিথ্যা বলার শাস্তি

মিথ্যা বলার শাস্তি – দরসে কুরআনে আজ আমাদের শায়েখ সূরা তূর নিয়ে আলোচনা করছিলেন। কুরআনী তাদাব্বুর তথা বুঝ না থাকার কারণে সারা জীবন এই সূরা কতবার পড়েছি, কিন্তু একবারও অর্থ বুঝি নি। আজ বারবার দরসে বসে মনে হচ্ছিল, আল্লাহ এমন কথা বলেছেন অথচ আমি এই সম্পর্কে অজ্ঞ! এটা চিরসত্য যে, কুরআনী তাদাব্বুর একদিনে তৈরি হয় না। আবার শুধুমাত্র বঙ্গানুবাদ দেখে তেলওয়াত করলেও তাদাব্বুর এতটা অর্জিত হয় না। মূল আরবি থেকে

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

অ্যাপল যেভাবে ইসরাইলকে সমর্থন করছে

অ্যাপল যেভাবে ইসরাইলকে সমর্থন করছে – গেজেটের দুনিয়ায় অ্যাপল একটি টেক জায়ান্ট কোম্পানী। ব্রান্ড ভ্যালু থাকার কারণে অ্যাপলের পণ্য অধিকাংশ মানুষের নিকট খুবই পছন্দনীয়। অ্যাপলের সাথে ইসরাইলের সম্পর্ক কি, তা জানতে হলে আমাদেরকে খানিকটা ইতিহাসের পাতায় প্রথমে চোখ বুলাতে হবে। ইসরাইল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা ও আরবরা আমরা একটু পেছন থেকে শুরু করি। বিশ্বে জায়োনিস্ট রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার আগেই প্যোলান্ড থেকে দলে দলে ইহুদিরা এসে ফিলিস্তিন ভূমিতে সন্ত্রাসী কার্যক্রম শুরু করে। গুপ্তচরবৃত্তি, গুপ্তহত্যা,

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

প্রাচীনকালে হজ যাত্রা যেমন ছিল

প্রাচীনকালে হজ যাত্রা যেমন ছিল – মুসলমানদের ধর্মীয় ইবাদাতের অন্যতম একটি ইবাদাত হলো পবিত্র হজ্জ। এটি ইসলামের পাঁচটি রোকন বা স্তুম্ভের মধ্যে অন্যতম। প্রতিজন সচ্ছল মুসলমানের জন্য জীবনে একবার হজ্জ করা ফরজ। হজ্জ একটি আবেগের নাম। একটি ভালোবাসার নাম। আল্লাহ সবাইকে হজ্জের আবেগ-ভালোবাসা দেন না। যাদেরকে দেন তাদেরকে যেন ঠেলে দেন। কী পরিমাণ আবেগ তাদের, তা দেখলে সত্যিই বিম্মিত হতে হয়। এখানে আমরা প্রাচীনকালের হজ্জযাত্রার কিছু চিত্র ছবি ও লেখার

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

দিনার ও দিরহাম হিসাব

দিনার ও দিরহাম হিসাব – ইসলামের শুরু থেকেই ‍মুদ্রা হিসেবে কোনো কাগুজে মুদ্রাকে প্রাধান্য না দিয়ে দিনার ও দিরহামকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। এর মূল রহস্য কি? প্রকৃতপক্ষে দিনার ও দিরহাম কখনোই কাগুজে মুদ্রার মতো মূল্যমান এক জায়গায় আঁটকে রাখে না। দিনার ও দিরহাম উভয়টাই স্বর্ণ ও রৌপ্য দ্বারা পরিমাপ করা হয় বিধায় স্বর্ণের সাথে সাথে এর মূল্যমান উঠানামা করতে থাকে। দিরহামের পরিচিতি দিরহাম হল রৌপ্যমুদ্রা। সাধারণত ৩ গ্রাম রূপা দিয়ে

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

কোকাকোলা কেন বয়কট করা উচিৎ

কোকাকোলা কেন বয়কট করা উচিৎ – তুফানুল আকসা শুরু হওয়ার পর থেকেই কোকাকোলা, পেপসি, ম্যাকডোনাল্ডস, স্টারবার্কসহ আরো বিভিন্ন আমরিকান পণ্য বয়কটের ডাক দেওয়া হয় মুসলিমবিশ্ব ও সচেতন বিশ্ববাসীর পক্ষ হতে। বাংলাদেশে কোকাকোলা কোম্পানী প্রায় একচেটিয়াভাবেই ব্যবসা করে যাচ্ছে দশকের পর দশক ধরে। বয়কটের ডাক দেওয়ার পর গত অক্টোবরে বহু দোকান থেকে কোকাকোলা সরিয়ে ফেলা হয়। সচেতন মানুষ এই পানীয় পান করা থেকে বিরত থাকা শুরু করে। তীব্র বয়কটের ফলে গত

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

সপ্তম শ্রেণীর পাঠ্যবইয়ে শরীফার গল্প থাকছে

এনসিটিবি কর্তৃক জানানো হয়, নতুন কারিক্যুলামে সপ্তম শ্রেণীর পাঠ্যবইয়ে শরীফার গল্প নামক সমকামিতা প্রচারকারী গল্পটি থাকছে। গত বছর থেকেই এই গল্পটি ও আরো কিছু লেখা নিয়ে তীব্র সমালোচনা করে শিক্ষিত মানুষেরা ও দেশের গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষাবিদ ও আলেমরা। বাদ যাচ্ছে শরীফার গল্প। এই বিষয়ে নিউজ প্রকাশিত হয় ১৭ মে ২০২৪ তারিখে। দেখুন নিচের বাটনগুলোতে। আমাদের মূল লেখাটিও রাখা হলো তাদের কর্মকাণ্ড বুঝার সুবিধার্থে কিন্তু তারা কারো কথা না শুনে একগুঁয়েমি করে

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

সপ্তম শ্রেণীর ইতিহাস ও সামাজিক বিজ্ঞান বই পর্যালোচনা

সপ্তম শ্রেণীর ইতিহাস ও সামাজিক বিজ্ঞান বই পর্যালোচনা – ২০২৪ সালের নতুন বই শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে জানুয়ারীর প্রথম দিকেই। বর্তমানে বইটির ক্লাসও ছাত্র-ছাত্রীরা নিয়মিত করছে। বিগত বছরের কিছু সমস্যার কারণে এবার ভেবেছিলাম, হয়তো এই বছর বইটি কলঙ্কমুক্ত থাকবে। নৈতিকতা বিবর্জিত পাঠ্য বইটিতে থাকবে না। আমরা এই বইটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ি। এরপর দেখলাম, অনেক রকম ভুল তথ্য ও বিকৃত তথ্য এই বইটি জুড়ে উল্লেখ করা হয়েছে। তাই

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

ভয়াবহ ফিতনা এবং মুসলমানদের করণীয়

ফিতনা হলো পরীক্ষা। চলাচলের রাস্তায় উৎ পেতে থাকা ফাঁদ। পৃথিবীতে রয়েছে ভয়াবহ ফিতনা এবং বিপদের ছড়াছড়ি। সম্পদের ফিতনা, অভাবের ফিতনা, নাম না জানা কত ফিতনা আছে, তার কোনো হিসাব নেই। ফেতনার এই মূহুর্তে মুসলমানদের করণীয় কি, সেটি একজন মুসলমানের জানা উচিৎ। নবীজি সা. পৃথিবীর এত লাখো লাখো ফিতনার মধ্যে সবচেয়ে ভয়ঙ্কর ফিতনা বলে আখ্যা দিয়েছেন নারীঘটিত ফিতনাকে। সহীহ বুখারীর ৫০৯৬ নং হাদীসে নবীজি সা. ইরশাদ করেন, হাদীসটি হযরত উসামা ইবনে

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

নারীবাদী তত্ত্ব থেকে নাস্তিক

নারীবাদীরা সর্বদা তাদের নারীবাদী তত্ত্ব থেকে ইসলামকে যাছাই করতে যায়। তখনই শুরু হয় বিরাট এক সমস্যা। ইসলামের সাথে নারীবাদের দ্বন্দ্ব বহু আগ থেকেই। কারণ, ইসলাম মানে আল্লাহর প্রতি আত্মসমর্পণ। আর নারীবাদ বলে ভোগবাদীর উপর আত্মসমর্পণ। এজন্য মুসলিম নারীবাদীরা একটা সময় ইসলাম থেকে বিচ্যুত হয়ে নাস্তিক হয়ে যায়। আর এই জিনিষটা একদিনে ঘটে না। পর্যায়ক্রমে এমনটা ঘটে। প্রথম ধাপ প্রথম প্রথম কিছুটা মনগড়া অভিযোগ ও কিছুটা ক্ষোভ দিয়ে তাদের বীজ বপন

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

সপ্তম শ্রেণীর পাঠ্যবইয়ে শরীফার গল্প থাকছে

এনসিটিবি কর্তৃক জানানো হয়, নতুন কারিক্যুলামে সপ্তম শ্রেণীর পাঠ্যবইয়ে শরীফার গল্প নামক সমকামিতা প্রচারকারী গল্পটি থাকছে। গত বছর থেকেই এই গল্পটি ও আরো কিছু লেখা নিয়ে তীব্র সমালোচনা করে শিক্ষিত মানুষেরা ও দেশের গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষাবিদ ও আলেমরা। বাদ যাচ্ছে শরীফার গল্প। এই বিষয়ে নিউজ প্রকাশিত হয় ১৭ মে ২০২৪ তারিখে। দেখুন নিচের বাটনগুলোতে। আমাদের মূল লেখাটিও রাখা হলো তাদের কর্মকাণ্ড বুঝার সুবিধার্থে কিন্তু তারা কারো কথা না শুনে একগুঁয়েমি করে

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

সুক্ষ্ম পরিকল্পনা করে হিজড়াকে ট্রান্সজেন্ডার হিসেবে প্রচার

সুক্ষ্ম পরিকল্পনা করে হিজড়াকে ট্রান্সজেন্ডার হিসেবে প্রচার – সম্প্রতি বাংলাদেশে কিছু আলেম ও দ্বীনী ভাইদের উদ্যোগে হিজড়া সম্প্রদায়ের জন্য আলাদা মসজিদ তৈরি করা হয়। যাতে তারা নির্বিঘ্নে ইবাদত করতে পারে। সাধারণত হিজড়ারা বিভিন্ন রকম পোশাক পরিধান করার কারণে আমাদের মসজিদগুলোতে যেতে পারে না। আমাদের কালচার তাদেরকে মেনে নিতে পারে না। তাদেরকে সহ্য করতে পারে না। তাই তাদের জন্য আলাদা ইবাদতগৃহ নির্মাণ নিঃসন্দেহে অতি উত্তম একটি কাজ। দেশে হিজড়াদের নিয়ে আলাদাভাবে

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

বাংলাদেশে উগ্র হিন্দুত্ববাদের থাবা

বাংলাদেশে উগ্র হিন্দুত্ববাদের থাবা – গত বৃহষ্পতিবারে একটি ঘটনা হঠাৎ নজরে আসে। জনৈক নওমুসলিম ভাই অন্য একজন নওমুসলিম বোনকে বিয়ে করে। উভয়েই নওমুসলিম। কিন্তু মেয়েটির পরিবার হলো কট্টর হিন্দু। তারা আদালতে মামলা দায়ের করে এই বিষয়ে। চট্টগ্রাম আদালতে এই বিষয়ে মামলা মোকাদ্দামা হয়। কিন্তু বৃহষ্পতিবারে পুরো কার্যক্রম শেষ না হওয়ায় রবিবার পর্যন্ত আদালত স্থগিত করা হয়। যথারীতি রবিবারে আদালত বসে। এদিকে পূর্বেই চট্টগ্রাম আদালতে উগ্র হিন্দুদের আগমণের খবর পেয়ে অনেক

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

খারেজিদের সাথে বিতর্ক

খারেজিদের সাথে বিতর্ক – হযরত আলী রা. যখন তার বাহিনী নিয়ে সিফফিন যুদ্ধ হতে কুফা নগরীতে ফিরে যাচ্ছিলেন তখন খারেজিরা এক বড় দল নিয়ে আলী রা. হতে পৃথক হয়ে যায়। তাদের সংখ্যা ছিল প্রায় ১০ থেকে ১২ হাজার। তবে এটি নিয়ে বিভিন্ন ইতিহাসগ্রন্থে বিভিন্নরকম বর্ণনা রয়েছে। আল বিদায়া ওয়ান নিহায় গ্রন্থে বলা হয়েছে, তাদের সংখ্যা ছিল ৮ হাজার। মুসান্নাফে আব্দুর রাজ্জাক গ্রন্থে বলা হয়েছে, তাদের সংখ্যা ছিল ১৪ হাজার। তারিখুল

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

মিথ্যা বলার শাস্তি

মিথ্যা বলার শাস্তি – দরসে কুরআনে আজ আমাদের শায়েখ সূরা তূর নিয়ে আলোচনা করছিলেন। কুরআনী তাদাব্বুর তথা বুঝ না থাকার কারণে সারা জীবন এই সূরা কতবার পড়েছি, কিন্তু একবারও অর্থ বুঝি নি। আজ বারবার দরসে বসে মনে হচ্ছিল, আল্লাহ এমন কথা বলেছেন অথচ আমি এই সম্পর্কে অজ্ঞ! এটা চিরসত্য যে, কুরআনী তাদাব্বুর একদিনে তৈরি হয় না। আবার শুধুমাত্র বঙ্গানুবাদ দেখে তেলওয়াত করলেও তাদাব্বুর এতটা অর্জিত হয় না। মূল আরবি থেকে

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

জিহাদ সম্পর্কে কুরআনের আয়াত

জিহাদ সম্পর্কে কুরআনের আয়াত সমূহ অনেক। এর মধ্য থেকে বাছাই করে নেয়া কিছু আয়াত সূরা বাকারার ১৫৪ নং আয়াতে আল্লাহ বলেন, وَ لَا تَقُوۡلُوۡا لِمَنۡ یُّقۡتَلُ فِیۡ سَبِیۡلِ اللّٰهِ اَمۡوَاتٌ ؕ بَلۡ اَحۡیَآءٌ وَّ لٰکِنۡ لَّا تَشۡعُرُوۡنَ যারা আল্লাহর রাস্তায় নিহত হয়, তাদেরকে মৃত বলো না। বরং তারা জীবিত। কিন্তু তোমরা বুঝতে পার না। মুমিন ব্যক্তি কেন আল্লাহর নিকট অমরত্ব চায়? পড়ুন সূরা আলে ইমরানের ১৫৬ থেকে ১৫৮ নং আয়াতে

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

প্রকৃত সুখ কী

“সাম্যতা বা সমতা। এটি থাকার মধ্যেই প্রকৃত সুখ রয়েছে” এমনটাই বলে থাকে সমাজতন্ত্রে বিশ্বাসী ভাইয়েরা। সকলেই কেন একরকম নয়, এটা ভেবে অনেকেই আক্ষেপ করেন। কেউ কেউ স্রষ্টার প্রতি অভিযোগও তোলেন যে, কেন আল্লাহ কাউকে গরিব বা কাউকে ধনী বানায়? কেন সকলকে একরকম সম্পদ দেয় না? আল্লাহ তা’আলা সূরা আসরের ১-৩ নং আয়াতে বলেন, وَ الۡعَصۡرِ ۙ  اِنَّ الۡاِنۡسَانَ لَفِیۡ خُسۡرٍ ۙ اِلَّا الَّذِیۡنَ اٰمَنُوۡا وَ عَمِلُوا الصّٰلِحٰتِ وَ تَوَاصَوۡا بِالۡحَقِّ

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

মুমিন ব্যক্তি কেন অমরত্ব চায়

মুমিন ব্যক্তি কেন অমরত্ব চায় – এক ছাত্র একবার শিক্ষকের সাথে দেখা করতে আসলো। বিদায়ের প্রাক্কালে ছাত্র শিক্ষককে বললো, হুজুর আমার জন্য দোয়া করবেন। যেন আমি অমরত্ব লাভ করি। হুজুর কথাটি শুনে অবাক হলেন। প্রশ্নসূরে বললেন, কি বলছো তুমি? অমর কি হওয়া যায়? ছাত্র তখন খানিকটা লজ্জা পেয়ে বললো, সূরা বাকারার ১৫৪ নং আয়াতে আল্লাহ বলেন, وَ لَا تَقُوۡلُوۡا لِمَنۡ یُّقۡتَلُ فِیۡ سَبِیۡلِ اللّٰهِ اَمۡوَاتٌ ؕ بَلۡ اَحۡیَآءٌ وَّ لٰکِنۡ

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

রিজিক কি নির্ধারিত

রিজিক কি নির্ধারিত – মানুষের জীবনে খাওয়া-দাওয়া নিয়ে যতটা না পেরেশান থাকতে হয়, অন্য কোনো কাজে বোধহয় এতটা পেরেশান কেউ হয় না। প্রতিদিন তিনবেলা বা দুবেলা কিংবা অন্তত একবেলা খাবার যেন আমাদের লাগেই। এছাড়া আমরা শরীরের শক্তিমত্তা হারাতে পারি। দুর্বলতা আমাদের গ্রাস করে নিবে। রিযিক নিয়ে এত পেরেশানী কখনো কখনো আমাদেরকে আল্লাহর আনুগত্য থেকে দূরে সরিয়ে দেয়। তাওয়াক্কুল করা থেকে আমাদের বাধা দেয়। আল্লাহ পবিত্র কুরআনে বলেছেন, যে আল্লাহর উপর

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

মুসলিম উম্মাহর ঐক্য

মুসলিম উম্মাহর ঐক্য – পৃথিবীতে মুসলিমরা আজ দ্বিধাবিভক্ত। তারা বিধ্বস্ত। তাদের জাগরণ আজ নিস্তব্ধ। ইসলাম শুরুতে এমন ছিল না। পৃথিবীতে এমন এক কঠিন সময়ে এই দ্বীনকে আল্লাহ পাঠিয়েছেন, যখন জাতিগত বিভেদ ছিল তুঙ্গে। মানুষ সর্বদা নিজের বড়াই করতো আর অপরকে হেয় প্রতিপন্ন করতো। মানুষ নিজের পরিচয় দিত, আমি অমুক গোত্রের, সে অমুক গোত্রের। আমি সাদা বর্ণের আর সে কালো বর্ণের। আমি ধনী আর সে গরীব। আমি আরবীয়। সে ভারতীয়। আল্লাহ

পুরো লেখাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন ➥

আরো বিষয়ভিত্তিক লেখা

একটি সওয়াব অর্জন করতে চান?

আপনার আশেপাশে থাকা অসহায় ব্যক্তিদের পাশে দাঁড়ানোর মাধ্যমে সহজেই আপনি আল্লাহর নিকট প্রিয় হতে পারেন। তাদের রিযিকের ব্যবস্থা আল্লাহ আপনার রিযিক থেকেই দিয়ে রেখেছেন। আপনি কি তাদেরকে তাদের ভাগ দিয়েছেন?

Scroll to Top