সূরা নিসার ২৩ নং আয়াতে আল্লাহ মাহরাম কারা এ সম্পর্কে বলেন,

حُرِّمَتۡ عَلَیۡکُمۡ اُمَّهٰتُکُمۡ وَ بَنٰتُکُمۡ وَ اَخَوٰتُکُمۡ وَ عَمّٰتُکُمۡ وَ خٰلٰتُکُمۡ وَ بَنٰتُ الۡاَخِ وَ بَنٰتُ الۡاُخۡتِ وَ اُمَّهٰتُکُمُ الّٰتِیۡۤ اَرۡضَعۡنَکُمۡ وَ اَخَوٰتُکُمۡ مِّنَ الرَّضَاعَۃِ وَ اُمَّهٰتُ نِسَآئِکُمۡ وَ رَبَآئِبُکُمُ الّٰتِیۡ فِیۡ حُجُوۡرِکُمۡ مِّنۡ نِّسَآئِکُمُ الّٰتِیۡ دَخَلۡتُمۡ بِهِنَّ ۫ فَاِنۡ لَّمۡ تَکُوۡنُوۡا دَخَلۡتُمۡ بِهِنَّ فَلَا جُنَاحَ عَلَیۡکُمۡ ۫ وَ حَلَآئِلُ اَبۡنَآئِکُمُ الَّذِیۡنَ مِنۡ اَصۡلَابِکُمۡ ۙ وَ اَنۡ تَجۡمَعُوۡا بَیۡنَ الۡاُخۡتَیۡنِ اِلَّا مَا قَدۡ سَلَفَ ؕ اِنَّ اللّٰهَ کَانَ غَفُوۡرًا رَّحِیۡمًا

তোমাদের প্রতি হারাম করা হয়েছে তোমাদের মা এবং মেয়ে, বোন, ফুফু, খালা, ভাইঝি, ভাগিনী, দুধ মা, দুধ বোন, শ্বাশুড়ী, তোমাদের স্ত্রীদের মধ্যে যার সাথে সঙ্গত হয়েছ তার পূর্ব স্বামীর ঔরসজাত মেয়ে যারা তোমাদের তত্ত্বাবধানে আছে, কিন্তু যদি তাদের সাথে তোমরা সহবাস না করে থাক, তবে (তাদের বদলে তাদের মেয়েদেরকে বিয়ে করলে) তোমাদের প্রতি গুনাহ নেই এবং (তোমাদের প্রতি হারাম করা হয়েছে) তোমাদের ঔরসজাত পুত্রের স্ত্রী এবং এক সঙ্গে দু’ বোনকে (বিবাহ বন্ধনে) রাখা, পূর্বে যা হয়ে গেছে, হয়ে গেছে, নিশ্চয়ই আল্লাহ পরম ক্ষমাশীল, দয়ালু।

পুরুষের জন্য মাহরাম

পুরুষরা যেসব নারীর সঙ্গে দেখা-সাক্ষাৎ করতে পারবেন; তারা হলেন-

১. দাদি

২. মা/দুধ মা

৩. বোন/দুধ বোন

৪. শাশুড়ি

৫. স্ত্রী

৬. মেয়ে/দুধ মেয়ে/সৎ মেয়ে

৭. ছেলে/দুধ ছেলের স্ত্রী

৮. ফুপু

৯. খালা

১০. ভাই/বোনের মেয়ে (ভাতিজি/ভাগ্নি)

১১. নানি

পুরুষের জন্য গায়রে মাহরাম

পুরুষরা যেসব নারীর সঙ্গে দেখা-সাক্ষাৎ করতে পারবেন না; তারা হলেন-

১. মায়ের খালাতো/চাচাতো/মামাতো/ফুপাতো বোন

২. চাচাতো বোন

৩. ভাবি

৪. বাবার খালাতো/চাচাতো/মামাতো/ফুপাতো বোন

৫. চাচি

৬. ফুপাতো বোন

৭. খালাতো বোন

৮. মামাতো বোন

৯. শ্যালক/শ্যালিকার মেয়ে (স্ত্রীর (ভাতিজি/ভাগ্নি) ভাই-বোনের মেয়ে)

১০. শ্বশুর/শাশুড়ির বোন (ফুফু শাশুড়ি/খালাশ শাশুড়ি)

১১. শ্যালিকা (স্ত্রীর বোন)

১২. মামি

১৩. স্ত্রীর খালাতো/চাচাতো/মামাতো/ফুপাতো বোন

১৪. স্ত্রীর ভাবি

১৫. মেয়ের ননদ

১৬. ছেলে/মেয়ের শাশুড়ি

নারীর জন্য মাহরাম

নারীরা যেসব পুরুষের সঙ্গে দেখা-সাক্ষাৎ করতে পারবেন, তারা হলেন-

১. দাদা

২. বাবা

৩. ভাই

৪. শ্বশুর

৫. স্বামী

৬. ছেলে

৭. নাতি

৮. চাচা

৯. ভাই/বোনের ছেলে (ভাতিজা/ভাগিনা)

১০. নানা

১১. মামা

নারীর জন্য গায়ের মাহরাম

নারীরা যেসব পুরুষের সঙ্গে দেখা-সাক্ষাৎ করতে পারবেন না; তারা হলেন-

১. মায়ের খালাতো/চাচাতো/মামাতো/ফুপাতো ভাই

২. চাচাতো ভাই

৩. দুলাভাই (বোনের স্বামী)

৪. বাবার খালাতো/চাচাতো/মামাতো/ফুপাতো ভাই

৫. ফুফুর স্বামী (ফুফা)

৬. ফুফাতো ভাই

৭. খালাতো ভাই

৮. মামাতো ভাই

৯. ননদের ছেলে

১০. শ্বশুর/শাশুড়ির ভাই (চাচা শ্বশুড়/মামা শ্বশুড়)

১১. দেবর/ভাসুর (স্বামীর ছোট ও বড় ভাই)

১২. ননদের স্বামী (স্বামীর ছোট বোনের স্বামী)

১৩. স্বামীর খালাতো/চাচাতো/মামাতো/ফুফাতো ভাই

১৪. স্বামীর দুলাভাই (স্বামীর বড় বোনের স্বামী)

১৫. ছেলের শ্যালক (ছেলের স্ত্রীর ছোট ভাই)

১৬. ছেলে/মেয়ের শ্বশুর

১৭. খালার স্বামী (খালু)

মাহরাম কারা , এ সম্পর্কে উপরে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো। আমাদের উচিৎ, ফেতনা থেকে দূরে থাকা। আল্লাহ আমাদের হেফাজত করুন। আমীন

আরো পড়ুন

একজন আদর্শ মুসলমানের পরিবার ভাবনা কেমন হওয়া উচিৎ?

মানুষের প্রকৃত সুখ কি?

জিহাদ সম্পর্কে বিস্তারিত দলীলসহ আলোচনা

বৈবাহিক ধর্ষণ দ্বারা নাস্তিকরা কি বুঝাতে চায় ও বাস্তবতা

ইহরাম অবস্থায় কি বিয়ে করা যায়?

দাসপ্রথার ব্যাপারে ইসলামের বিধান কি? এবং তা কি মানবতাবিরোধী?

গাজ্জার জন্য অনুদান

৭ অক্টোবর ২০২৩ তারিখে তুফানুল আকসা যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকেই ফিলিস্তিনের গাজ্জায় অসংখ্য মানুষ আহত ও শহীদ হয়েছে। বহু মানুষ নিজেদের ঘর-বাড়ী হারিয়েছে। এছাড়াও বর্তমানে গাজ্জার ৯৮% মানুষ অনাহারে জীবন-যাপন করছে। গাজ্জার মানুষের এই দুঃসময়ে আমরা যদি তাদের পাশে না দাঁড়াই তাহলে কে দাঁড়াবে?

আর-রিহলাহ ফাউন্ডেশন তুফানুল আকসা যুদ্ধের শুরু থেকেই ফিলিস্তিনের গাজ্জার জন্য ডোনেশন সংগ্রহ করে আসছে। এই মহান কাজে আপনিও আমাদের সাথে যুক্ত হতে পারেন।

অনুদান দিন

Scroll to Top