খাত্তাব ইবনে নুফায়েল

গাজ্জার জন্য অনুদান

৭ অক্টোবর ২০২৩ তারিখে তুফানুল আকসা যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকেই ফিলিস্তিনের গাজ্জায় অসংখ্য মানুষ আহত ও শহীদ হয়েছে। বহু মানুষ নিজেদের ঘর-বাড়ী হারিয়েছে। এছাড়াও বর্তমানে গাজ্জার ৯৮% মানুষ অনাহারে জীবন-যাপন করছে। গাজ্জার মানুষের এই দুঃসময়ে আমরা যদি তাদের পাশে না দাঁড়াই তাহলে কে দাঁড়াবে?

আর-রিহলাহ ফাউন্ডেশন তুফানুল আকসা যুদ্ধের শুরু থেকেই ফিলিস্তিনের গাজ্জার জন্য ডোনেশন সংগ্রহ করে আসছে। এই মহান কাজে আপনিও আমাদের সাথে যুক্ত হতে পারেন।

অনুদান দিন

হযরত ওমর রা. এর পিতা খাত্তাব ইবনে নুফায়েল ছিলেন আরবের অন্যতম বাগ্মী ব্যক্তি। তিনি ওকাজ মেলায় কুরাইশদের দূত হিসেবে নিযুক্ত হতেন।

নেতৃত্বের দিক দিয়ে তিনি ছিলেন অনন্য যোগ্যতার অধিকারী। মানুষ তার কথা শুনতে পছন্দ করতো। তিনি কুটনৈতিক জ্ঞানে দক্ষ ছিলেন।

খাত্তাব ইবনে নুফায়েল এর জন্ম

হযরত ওমর রা. এর পিতা খাত্তাব জন্মগ্রহণ করেন আনুমানিক ৫৬০ খ্রিষ্টাব্দে। তার জন্মতারিখ বিস্তারিতরূপে জানা যায় না। তিনি নবীজির থেকে দশ বছরের বড় ছিলেন।

খাত্তাবের জন্ম হয় মক্কা শহরের অন্যতম গোত্র বনু আদী গোত্রে। বনু আদি গোত্র হলো, কুরাইশ গোত্রেরই একটি শাখা গোত্র।

খাত্তাব ইবনে নুফায়েলের বংশ ক্রমানুধারা

খাত্তাব ইবনে নুফায়েল ইবনে আব্দুল ওজ্জা ইবনে রিয়াহ ইবনে আব্দুল্লাহ ইবনে কুরুত ইবনে রাযাহ ইবনে আদি ইবনে কাব ইবনে লুআঈ।

কাব ইবনে লুআঈ এর সাথে গিয়ে কুরাইশের অন্যতম বিখ্যাত গোত্র হাশেমীদের সাথে মিলিত হয়েছে। এরপর বংশধারা ইসমাইল আ. পর্যন্ত গিয়েছে।

খাত্তাব ইবনে নুফায়েলের পিতা-মাতা

খাত্তাবের পিতার নাম হলো নুফায়েল। আর মায়ের নাম হলো উমাইমা। খাত্তাবের মা উমাইমা ছিলেন বনু খুজায়মা গোত্রের মেয়ে।

খাত্তাব ইবনে নুফায়েলের পরিবার

খাত্তাবের প্রথম স্ত্রীর নাম হলো, হানতামাহ ইবনেতে হিশাম।

তিনি মক্কার অন্যতম কাফের আবু জাহলের চাচাতো বোন ছিলেন। পরে খাত্তাব ইবনে নুফায়েল আসমা ইবনেতে ওয়াহহাবকে বিয়ে করেন।

খাত্তাবের প্রথম স্ত্রী হানতামাহর গর্ভে ওমর ও ফাতিমা ইবনেতে খাত্তাব জন্মগ্রহণ করেন।

আর আসমা ইবনেতে ওয়াহহাবের গর্ভে যায়েদ ইবনে খাত্তাব রা. জন্মগ্রহণ করেন।

খাত্তাব ইবনে নুফায়েলের যুদ্ধে অংশগ্রহণ

মক্কায় সে সময় সংগঠিত হয় ফিজারের যুদ্ধ। যার একপক্ষে ছিল গাফতান গোত্র। আর অপর পক্ষে ছিল কুরাইশরা। এই যুদ্ধে খাত্তাব ইবনে নুফায়েল প্রত্যক্ষভাবে অংশগ্রহণ করে।

খাত্তাব ইবনে নুফায়েলের মৃত্যু

ওমর রা. এর পিতা খাত্তাব নবীজির নবুয়তলাভের কয়েক বছর আগেই মৃত্যুবরণ করেন। তিনি ৬০০ খৃষ্টাব্দে মৃত্যুবরণ করেন।

সেই মোতাবেক তিনি হায়াত পেয়েছিলেন ৪০ বছর।

হযরত ওমর রা. আব্বাস রা. এর ইসলাম গ্রহণের পর বলেছিলেন, আপনার ইসলাম গ্রহণ আমার নিকট আমার পিতার ইসলাম গ্রহণ করার চাইতেও বেশি প্রিয়। যদি আমার বাবা বেঁচে থাকতেন! কারণ, আমি নবীজিকে আপনার ব্যাপারে আশাব্যাক্ত করতে দেখেছি।

খাত্তাব ইবনে নুফায়েল কবে জন্মগ্রহণ করেন

৫৬০ খৃষ্টাব্দে খাত্তাব মক্কানগরীতে জন্মগ্রহণ করেন

খাত্তাব ইবনে নুফায়েল কবে মৃত্যুবরণ করেন

৬০০ খৃষ্টাব্দে মক্কায় খাত্তাব মৃত্যুবরণ করেন। তিনি নবীজির নবুয়তলাভের বছরখানেক পূর্বে মৃত্যুবরণ করেন

গাজ্জার জন্য অনুদান

৭ অক্টোবর ২০২৩ তারিখে তুফানুল আকসা যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকেই ফিলিস্তিনের গাজ্জায় অসংখ্য মানুষ আহত ও শহীদ হয়েছে। বহু মানুষ নিজেদের ঘর-বাড়ী হারিয়েছে। এছাড়াও বর্তমানে গাজ্জার ৯৮% মানুষ অনাহারে জীবন-যাপন করছে। গাজ্জার মানুষের এই দুঃসময়ে আমরা যদি তাদের পাশে না দাঁড়াই তাহলে কে দাঁড়াবে?

আর-রিহলাহ ফাউন্ডেশন তুফানুল আকসা যুদ্ধের শুরু থেকেই ফিলিস্তিনের গাজ্জার জন্য ডোনেশন সংগ্রহ করে আসছে। এই মহান কাজে আপনিও আমাদের সাথে যুক্ত হতে পারেন।

অনুদান দিন

Scroll to Top