নামাজ শিক্ষা

নামাজ শিক্ষা – একজন মুসলিম হিসেবে আমরা সকলেই জানি, ইসলামের ফরজ বিধান ৫ টি। এই পাঁচটি হলো, মুসলিম হওয়ার পর প্রথম কর্তব্য।

কেউ যদি মুসলমান হওয়ার পর উক্ত পাঁচটি বিধানকে ফরজ হিসেবে না মানে তাহলে সে গুনাহগার হবে। আর কেউ যদি উক্ত বিধানগুলোকে অস্বীকার করে, তাহলে তাকে মুরতাদ হিসেবে সাব্যস্ত করা যাবে।

নামাজ শিক্ষা

ইসলামের পাঁচটি স্তম্ভ

  • কালিমা
  • নামাজ
  • রোজা
  • হজ্জ
  • যাকাত

নামাজ কেন গুরুত্বপূর্ণ

একজন ব্যক্তি কালিমায়ে তায়্যিবা পড়ে মুসলমান হওয়ার পর তার উপর নামাজ ফরজ হয়ে যায়।

নামাজ হলো, আল্লাহর পক্ষ থেকে নির্ধারিত নীতিমালা, যারা দ্বারা আল্লাহর নৈকট্য হাসিল করা যায়।

কেউ যদি নামাজ না পড়ে, তাহলে সে গুনাহগার হিসেবে সাব্যস্ত হবে। আল্লাহর নবী নামাজের শাস্তি সম্পর্কে বলেন,

قَالَ النَّبِىُّ . مَنَ تَرَكَ صَلاَةً حَتىَّ مَضَى وَقْتُهَا ثُمَّ قَضَى عُذِّبَ فِى النَّارِ حُقْبًا وَالْحُقْبُ ثَمَانُوْنَ سَنَةً كُلُّ سَنَةٍ ثَلاَثمائة وَسِتُّوْنَ يَوْمًا كُلُّ يَوْمٍ اَلْفُ سَنَةٍ مِمَّا تَعُدُّوْنَ.

রাসূল সা. বলেন, যদি কোন ব্যক্তি এক ওয়াক্ত ছালাত ছেড়ে দেয় আর ইতিমধ্যে ঐ সালাতের ওয়াক্ত পার হয়ে যায় এবং সালাত আদায় করে নেয়,

তবুও তাকে এক হুকবা জাহান্নামে শাস্তি দেওয়া হবে। এক হুকবা হল, ৮০ বছর। আর প্রত্যেক বছর ৩৬০ তিন।

আর প্রত্যেক দিন এক হাযার বছরের সমান, যেভাবে তোমরা গণনা কর।

উল্লেখ্য, উক্ত হিসাব অনুযায়ী সর্বমোট দুই কোটি অষ্টাশি লক্ষ বছর হয়।

[সহীহ বুখারী। হাদীস নং ৫৯৬]

উক্ত হাদীসটির ‍দিকে লক্ষ্য করুন, আপনি ইচ্ছাকৃতভাবে নামাজ বিলম্ব করার পরও ২ কোটি ৮৮ বছর জাহান্নামে জ্বলতে হবে।

নামাজ কবে ফরজ হয়

নামাজ শিক্ষা – মিরাজের রাতে রাসূল সা. যখন আল্লাহর সাথে সাক্ষাৎ করলেন,

তখন আল্লাহ তা’আলা এই উম্মতের জন্য ৫০ ওয়াক্ত নামাজ ফরজ করলেন।

এরপর আল্লাহ তা’আলা দয়াবশত ৫ ওয়াক্ত নামাজ ফরজ করলেন। এ বিষয়ে একটি হাদীস বর্ণিত রয়েছে।

عَنْ أَنَسِ بْنِ مَالِكٍ، قَالَ فُرِضَتْ عَلَى النَّبِيِّ صلى الله عليه وسلم لَيْلَةَ أُسْرِيَ بِهِ الصَّلَوَاتُ خَمْسِينَ ثُمَّ نُقِصَتْ حَتَّى جُعِلَتْ خَمْسًا ثُمَّ نُودِيَ يَا مُحَمَّدُ إِنَّهُ لاَ يُبَدَّلُ الْقَوْلُ لَدَىَّ وَإِنَّ لَكَ بِهَذِهِ الْخَمْسِ خَمْسِينَ

‘হযরত আনাস ইবনে মালিক (রা.) হতে বর্ণিত আছে, তিনি বলেন, মিরাজের রাতে রাসূল (সা.)-র উপর পঞ্চাশ ওয়াক্ত নামায ফরজ করা হয়েছিল।

অতঃপর তা কমাতে কমাতে পাঁচ ওয়াক্তে সীমাবদ্ধ করা হয়। অতঃপর ঘোষণা করা হল, হে মুহাম্মাদ! আমার নিকট কথার কোনো অদল বদল নাই।

তোমার জন্য এই পাঁচ ওয়াক্তের মধ্যে পঞ্চাশ ওয়াক্তের সওয়াব রয়েছে।’

[সুনানে তিরমিযী, হাদিস: ২১৩]

আরো পড়ুন

মোবাইল কেন আপনার বন্ধু নয় ?

ঈদের দিন করণীয় ও বর্জনীয়

মহানবী সা. এর সিরিয়া সফর

গুনাহ থেকে বাঁচার উপায়

ইসলামের স্তম্ভ কয়টি?

ইসলামের স্তম্ভ পাঁচটি। যথা: কালিমা, নামাজ, রোজা, হজ্জ, যাকাত

নামাজ না পড়ার শাস্তি কি?

রাসূল সা. বলেন, যদি কোন ব্যক্তি এক ওয়াক্ত ছালাত ছেড়ে দেয় আর ইতিমধ্যে ঐ ছালাতের ওয়াক্ত পার হয়ে যায় এবং ছালাত আদায় করে নেয়, তবুও তাকে এক হুকবা জাহান্নামে শাস্তি দেওয়া হবে। এক হুকবা হল, ৮০ বছর। আর প্রত্যেক বছর ৩৬০ তিন। আর প্রত্যেক দিন এক হাযার বছরের সমান, যেভাবে তোমরা গণনা কর। উল্লেখ্য, উক্ত হিসাব অনুযায়ী সর্বমোট দুই কোটি অষ্টাশি লক্ষ বছর হয়।

আমি একজন ইসলামিক আলোচক, লেখক। ছোটবেলায় পড়ালেখা করেছি কওমী মাদ্রাসায়। পরবর্তীতে সাইন্স বিভাগ থেকে এসএসসি পরীক্ষা দিয়ে কৃতিত্বের সাথে পাশ করি। বর্তমানে আমি ডিপ্লোমা ইন মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এ অধ্যায়নরত। অবসরে আমি বই পড়তে পছন্দ করি। নতুন কিছু শিখতে, নতুন কিছু জানতে ভালোবাসি। আমার ইচ্ছা, ভালো মানুষ হয়ে সমাজকে সৎ কাজের আদেশ ও অসৎ কাজে বিরত রাখার চেষ্টা করা।

https://www.arhasan.com