ওহুদ যুদ্ধে ওমর রা.

ওহুদ যুদ্ধে ওমর – জিহাদের ময়দানে হযরত ওমর রা. থাকতেন সামনের সারিতে। তিনি কখনো যুদ্ধ দেখতে পিছুটান নিতেন না। পরাজয় নিশ্চিত জানলেও লক্ষ্যে অবিচল থেকে এগিয়ে যেতেন।

ওহুদের যুদ্ধেও ওমর রা. এর এই গুণের প্রতিফলন ঘটেছিল। এই যুদ্ধ ছিল রাসূল সা. এর সাথে তার দ্বিতীয় যুদ্ধ। প্রথম যুদ্ধ ছিল বদরের যুদ্ধ

ওহুদের যুদ্ধে মুসলমানদের ছোট একটি ভুলের কারণে প্রায় পরাজয় হতে যাচ্ছিল।

তখন ওমর রা. রাসূলকে রক্ষার জন্য ঢাল হয়ে তার পাশে দাঁড়িয়ে যান।

ওহুদের দিন আবু সুফিয়ানের হুংকার

ওহুদ যুদ্ধের শেষে আবু সুফিয়ান ডাক দিয়ে বলছিল, মুহাম্মাদ – আবু বকর – ওমর এই তিনজনের কোনো একজন কি বেঁচে আছে?

নবীজি তখন বললেন, তার কথার জবাব দিও না। পরপর তিনবার আবু সুফিয়ান এভাবে হুংকার দিয়ে বললো। শেষে ওমর রা. আর চুপ থাকতে পারলেন না।

তিনি উঠে দাঁড়িয়ে বললেন, হে আল্লাহর শত্রু! তোমার কথা সত্য নয়। আল্লাহ তা’আলা তোমাকে অপমানিত করেছেন।

তখন আবু সুফিয়ান বললো, হুবল (আরবের এক প্রতিমা) বিজয়লাভ করেছে।

নবীজি তখন বললেন, এখন আবু সুফিয়ানের কথার জবাব দাও। সাহাবারা জিজ্ঞাসা করলেন, আমরা তাহলে কি বলবো?

নবীজি তখন বললেন, তোমরা বলো যে আল্লাহ সর্বশক্তিমান এবং অধিক মহিমান্বিত।

আবু সুফিয়ান সাহাবীদের এই কথা শুনে বললো, উজ্জা (জাহেলিয়্যাতের সময়ের এক মূর্তির নাম) আমাদের। তোমাদের নয়।

নবীজি তখন সাহাবীদের বললেন, তার কথার জবাব দাও। সাহাবারা আবার বললেন, আমরা কি বলবো?

নবীজি বললেন, তোমরা বলো যে আল্লাহ আমাদের অভিভাবক। আর তোমরা অভিভাবকহীন।

আবু সুফিয়ান তখন রাগে ক্ষোভে বললো, বদরের এক দিনের বদলা একদিন, যুদ্ধ এখনো শেষ হয় নি। তখন ওমর রা. বলেছিলেন,

আমাদের নিহত ব্যক্তিরা জান্নাতে আর তোমাদের নিহত ব্যক্তিরা জাহান্নামে রয়েছে। তখন ওমর রা. কে আবু সুফিয়ান বললো,

আমরা কি মুহাম্মাদকে হত্যা করতে পেরেছি? ওমর বললেন, না। বরং তিনি এখন তোমার কথা শুনতে পাচ্ছেন।

কাফেরদের মাথাব্যাথার কারণ কারা ছিল

এই ঘটনা প্রমাণ করে যে, মুহাম্মাদ সা. এবং আবু বকর রা. ও ওমর রা. ছিলেন ইসলামের সবচেয়ে শক্তিধর ব্যক্তি।

কাফেরদের নিকট এই তিনজন মাথাব্যাথার কারণ ছিল। তারা চাইতো যে, যেভাবেই হোক এই তিনজনকে যেন হত্যা করা যায়।

কিন্তু তাদের উদ্দেশ্য কখনো সফল হয় নি। – ওহুদ যুদ্ধে ওমর

তথ্যসুত্র

জীবন ও কর্ম: ওমর রা.। পৃষ্ঠা ৯৭-৯৯

আরো পড়ুন

আবু আব্দুল্লাহ শিয়ায়ীর উত্থান কিভাবে ঘটে?

নওমুসলিমদেরকে আবু বকর রা. কিভাবে কাফেরদের নির্যাতন থেকে রক্ষা করতেন?

আসওয়াদ আনাসির ফেতনায় কারা পতিত হয়েছিল?

কুরআনে এতিমের অধিকার সম্পর্কে কি বলা হয়েছে?

ওমর রা. এর মদীনায় হিজরত ও কাফেরদের আত্মসম্মানে আঘাত

বিশেষ দ্রষ্টব্য: আমাদের লেখাগুলো সূচিপত্র অনুযায়ী দেখুন www.subject.arhasan.com এই ওয়েবসাইটে। আমরা কোন প্রকাশনীর বই রেফারেন্স হিসেবে ব্যবহার করি তা জানতে ভিজিট করুন www.arhasan.com/book এই ওয়েবসাইটে। আমাদেরকে গুগল নিউজে ফলো করতে পারেন এই লিংক থেকে। আমাদের ইউটিউব চ্যানেল ভিজিট করুন এই লিংক থেকে। এই লেখার লেখক সম্পর্কে আরো জানুন এই লিংক থেকে

আমি একজন ইসলামিক আলোচক, লেখক। ছোটবেলায় পড়ালেখা করেছি কওমী মাদ্রাসায়। পরবর্তীতে সাইন্স বিভাগ থেকে এসএসসি পরীক্ষা দিয়ে কৃতিত্বের সাথে পাশ করি। বর্তমানে আমি ডিপ্লোমা ইন মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এ অধ্যায়নরত। অবসরে আমি বই পড়তে পছন্দ করি। নতুন কিছু শিখতে, নতুন কিছু জানতে ভালোবাসি। আমার ইচ্ছা, ভালো মানুষ হয়ে সমাজকে সৎ কাজের আদেশ ও অসৎ কাজে বিরত রাখার চেষ্টা করা।

https://www.arhasan.com