ম্যাক্রোর বাংলাদেশে আগমন

গাজ্জার জন্য অনুদান

৭ অক্টোবর ২০২৩ তারিখে তুফানুল আকসা যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকেই ফিলিস্তিনের গাজ্জায় অসংখ্য মানুষ আহত ও শহীদ হয়েছে। বহু মানুষ নিজেদের ঘর-বাড়ী হারিয়েছে। এছাড়াও বর্তমানে গাজ্জার ৯৮% মানুষ অনাহারে জীবন-যাপন করছে। গাজ্জার মানুষের এই দুঃসময়ে আমরা যদি তাদের পাশে না দাঁড়াই তাহলে কে দাঁড়াবে?

আর-রিহলাহ ফাউন্ডেশন তুফানুল আকসা যুদ্ধের শুরু থেকেই ফিলিস্তিনের গাজ্জার জন্য ডোনেশন সংগ্রহ করে আসছে। এই মহান কাজে আপনিও আমাদের সাথে যুক্ত হতে পারেন।

অনুদান দিন

ম্যাক্রোর হঠাৎ করেই বাংলাদেশে আগমন (১১/৯/২৩)। কোন রাজনৈতিক কারণে এসেছে, তা আমার স্পষ্ট জানা নেই।

আমি শুধু স্মৃতির পাতায় ভর করে খানিকটা পেছনে যেতে চাই।

২০২১ সালে করোনা প্রকোপ কমে যাওয়ার পরে ফ্রান্সের এক কার্টুনিস্ট নবীজিকে নিয়ে ব্যাঙ্গাত্মক চিত্র তৈরি করে।

নবীজিকে নিয়ে এমন জঘন্য কাজ করায় আরব বিশ্বসহ সমগ্র মুসলিম উম্মাহ সেসময় ক্ষোভে ফেটে পড়েছিল।

কাতারসহ বেশ কিছু দেশ ফ্রান্সের পণ্য নিষিদ্ধ করেছিল।

আমাদের বাংলাদেশেও এটা নিয়ে প্রতিবাদ হয়। ঢাকা বাইতুল মোকাররমসহ বিভিন্ন স্থানে মানুষ বিক্ষোভ করে।

তাওহীদি জনতা চেয়েছিল, ফ্রান্সের দূতাবাস ঘেরাও করতে। কিন্তু তা সম্ভব হয় নি দেশের প্রভুদরদী সরকারের কারণে।

উক্ত সময়ে বাংলাদেশে ফ্রান্সের পণ্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করারও দাবী উঠেছিল। কিন্তু সরকার তা আমলে নেয় নি।

সেই মুসলিম বিদ্ধেষী যখন বাংলাদেশে আসে এবং দেশের একশ্রেণীর জনগণের আবেগ উথলে উঠে, তারা আসলে কখনো ইতিহাস থেকে শিক্ষা নেয় না।

ইউরোপের বিভিন্ন উপনিবেশগুলো ভারত মহাদেশ ও আফ্রিকায় রাজত্ব করেছে। ইংল্যান্ড হিন্দুস্থান, অস্ট্রোলিয়া, ফিজিসহ বিভিন্ন দেশে উপনিবেশ কায়েম করেছিল।

ফ্রান্স বা ফরাসী সাম্রাজ্য আফ্রিকার বহু দেশে তাদের সাম্রাজ্যবাদের বিস্তার ঘটিয়েছিল।

মানুষ আজ ইতিহাস পড়লেও সেই ইতিহাস থেকে কোনো শিক্ষা নেয় না।

ইংরেজদের ২০০ বছরের অত্যাচার মানুষ ভুলে গেল নিমিষেই।

বীর মনিষীদের হত্যার কথাও যে দেশের মানুষ ভুলে যায়, সে দেশের মানুষ নবী বিদ্ধেষীকে কিভাবে মনে রাখবে?

পৃথিবীতে সবচেয়ে বড় ধোঁকাময় বাক্য হলো, সকল মানুষ সমান। ধর্ম কোনো ফ্যাক্ট নয়।

মানুষ বড়ই অজ্ঞ। কোনো দেশের একাংশ যদি বিদ্রোহ করে, তাহলে কি সরকার তাদেরকে দুধ-কলা ভাত খাওয়ায়?

তাদের সুযোগ-সুবিধা বহাল রাখে?

এটার উত্তর যদি হয় না, তাহলে যেই ব্যক্তি স্রষ্টার বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করছে, আল্লাহর প্রেরিত নবী ও দ্বীনের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করছে, তখন এত আবেগ আসে কোথা থেকে?

আসলে মানুষ ভয় পায় অপরাধ করতে না পারার। মানুষ ভয় পায় মন চাহে জিন্দেগী মোতাবেক না চলার। সময় একদিন আসবে ইনশাল্লাহ!

এই দেশ মুসলামরা শাসন করবে। কোনো মুসলিম বিদ্ধেষী এই ভূমিতে পা রাখবে! তা ভাবতেও তো ঘেন্না হয়

কিছু সংযুক্তি

বিবিসিতে প্রকাশিত ফ্রান্সের নবী অবমাননা

সামহোয়্যার ব্লগের একটি লেখা

মাসিক আল কাউসারের একটি সম্পর্কিত একটি লেখা

ফরাসি পণ্য বয়কট সম্পর্কিত নিউজ

ফরাসি পন্য বয়কট আন্দোলন

নবীজির ব্যাঙ্গচিত্র করা ফ্রান্সের কার্টুনিস্ট নিহত

বাংলাদেশে ম্যাক্রো

গাজ্জার জন্য অনুদান

৭ অক্টোবর ২০২৩ তারিখে তুফানুল আকসা যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকেই ফিলিস্তিনের গাজ্জায় অসংখ্য মানুষ আহত ও শহীদ হয়েছে। বহু মানুষ নিজেদের ঘর-বাড়ী হারিয়েছে। এছাড়াও বর্তমানে গাজ্জার ৯৮% মানুষ অনাহারে জীবন-যাপন করছে। গাজ্জার মানুষের এই দুঃসময়ে আমরা যদি তাদের পাশে না দাঁড়াই তাহলে কে দাঁড়াবে?

আর-রিহলাহ ফাউন্ডেশন তুফানুল আকসা যুদ্ধের শুরু থেকেই ফিলিস্তিনের গাজ্জার জন্য ডোনেশন সংগ্রহ করে আসছে। এই মহান কাজে আপনিও আমাদের সাথে যুক্ত হতে পারেন।

অনুদান দিন

Scroll to Top